Total Pageviews

Sunday, November 27, 2011

নামের কারণে সংঘাতের বলি নিরীহ শান্ত চাকমা

Courtesy: Prothom Alo, Dhaka, Saradesh.

Web: http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-11-27/news/204362

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙামাটি | তারিখ: ২৭-১১-২০১১

শুধু নামের কারণে ভ্রাতৃঘাতী সংঘাতের বলি হলেন শান্ত চাকমা ওরফে সিং (২০) ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) নেতা ভেবে গত শুক্রবার রাতে রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলার বনযোগীছড়া ইউনিয়নের চিত্তিমাছড়া এলাকায় তাঁকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এদিকে ইউপিডিএফ পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি শান্তকে নিজেদের কর্মী দাবি করে হত্যার জন্য পরস্পরকে দোষারোপ করেছে।
শান্ত চাকমা বনযোগীপাড়ার বড়ইতলী গ্রামের পদ্মলোচন চাকমার ছেলে। শান্ত এলাকায় নিরীহ যুবক হিসেবে পরিচিত। তাঁর পেশা মাছশিকার নিজেদের জমিতে চাষ করা
স্বজনদের দাবি, শান্ত চাকমা নামে ইউপিডিএফের একজন নেতা আছেন। তাঁকে মনে করে প্রতিপক্ষের লোকজন এই শান্তকে হত্যা করে। তিনি কোনোকালে কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় লোকজন আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে শান্ত চাকমা তাঁর এক ঘনিষ্ঠ আত্মীয়সহ নিজ বাড়ি থেকে প্রায় চার কিলোমিটার দূরে চিত্তিমাছড়া গ্রামে যাচ্ছিলেন। রাত নয়টার দিকে ওই গ্রামের কাছাকাছি পৌঁছালে একদল সশস্ত্র ব্যক্তি তাঁদের পথরোধ করে। সশস্ত্র ব্যক্তিরা নাম জিজ্ঞেস করলে শান্ত নিজের নাম জানান। সময় সশস্ত্র ব্যক্তিরা তাঁকে জাপটে ধরে বেঁধে ফেলে। পরে তাঁর আত্মীয়কে সেখান থেকে চলে যেতে বলে এবং কাউকে না জানানোর হুমকি দেয়।
গতকাল সকালে সেনাবাহিনী পুলিশ শান্তর লাশ উদ্ধার করে। শান্তর আসল পরিচয় প্রকাশ হলে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। কিন্তু শোক প্রকাশ করার পরিবর্তে জনসংহতি সমিতি ইউপিডিএফের হুমকিতে এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। এলাকাবাসীর অভিযোগ, ইউপিডিএফ শান্ত চাকমাকে তাঁদের সমর্থক দাবি করে লাশ বের করে দিতে চাপ দেয়। অপরদিকে জনসংহতি সমিতির লোকজন এই বলে হুমকি দেয়, কোনো অবস্থাতে যেন লাশ প্রকাশ্যে আনা না হয়।
জুরাছড়ি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম জানান, বিভিন্নজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে সেনাবাহিনী পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরে গভীর জঙ্গলে প্রায় আড়াই ঘণ্টা তল্লাশির পর একটি পাহাড়ের ঝিরি থেকে শান্ত চাকমার লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশ দেখে মনে হচ্ছে, তাঁকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনায় থানায় কোনো মামলা হয়নি।
এসআই রফিকুল বলেন, নিহত শান্ত চাকমার বিরুদ্ধে থানায় কোনো অভিযোগ নেই

No comments:

Post a Comment